Month: August 2019

মন্ত্রীর নিরাপত্তায় থাকা দুই পুলিশের ওপর বোমা হামলা

মন্ত্রীর নিরাপত্তায় থাকা দুই পুলিশের ওপর বোমা হামলা

প্রধান সংবাদ, বাংলাদেশ
রাজধানীর সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দুই পুলিশ সদস্যের ওপর বোমা হামলা : ছবি- স্টার মেইল সিলেট মেইল, ঢাকা: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দুই পুলিশ সদস্যের ওপর বোমা হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার (৩১ আগস্ট) রাত আনুমানিক ৯টা ২০ মিনিটে রাজধানীর সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ের পুলিশ বক্সের সামনে এ ঘটনা ঘটে। তাদের উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত দুই পুলিশ সদস্য হলেন- সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শাহাবুদ্দিন (৩৫) ও কনস্টেবল আমিনুল (৪০)। রাজধানীর সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলামের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দুই পুলিশ সদস্যের ওপর বোমা হামলা : ছবি- স্টার মেইল ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) মাসু
টেস্টে অভিষেক হয়ে গেলো পৃথিবীর সবচেয়ে ওজনদার ক্রিকেটারের

টেস্টে অভিষেক হয়ে গেলো পৃথিবীর সবচেয়ে ওজনদার ক্রিকেটারের

৬ ফুট ৫ ইঞ্চি লম্বা, ১৪০ কেজি ওজনের ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের রাহকিম কর্নওয়াল টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে ভারী খেলোয়াড় হিসেবে রেকর্ড গড়েছেন। এত ওজনের টেস্ট ক্রিকেটার আগে দেখেনি কেউ। এতদিন সবচেয়ে ভারী টেস্ট ক্রিকেটারের রেকর্ড ছিল সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক ওয়ারউইক আর্মস্ট্রংয়ের। তার ওজন ছিল ১৩৩ থেকে ১৩৯ কেজি। জ্যামাইকা টেস্টে শুক্রবার ভারতের বিপক্ষে টেস্ট ক্যাপ পেয়েছেন ‘মাউন্টেন ম্যান’ নামে খ্যাত কর্নওয়াল। অভিষেকের দিন পারফরম্যান্স দিয়েও নজর কেড়েছেন। নিয়েছেন চেতেশ্বর পূজারার উইকেট! শুক্রবার জ্যামাইকা টেস্টের প্রথম দিনটা ভালো অবস্থানে থেকে শেষ করেছে ভারত। টসে হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামা দলটির দিন শেষে সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ২৬৪ রান। ৭৬ রান করে উইকেট ছাড়া হন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ৫৫ রান করেন ওপেনার মায়াঙ্কা আগারওয়াল। হানুমা বিহারি ৪২ ও রিশাভ পন্ত ২৭ রানে অপরাজিত আছেন। ৩৯ রানে তিনটি উইকেট
সবচেয়ে বেশি ট্রলের শিকার হওয়া ১০ ঢালিউড তারকা

সবচেয়ে বেশি ট্রলের শিকার হওয়া ১০ ঢালিউড তারকা

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সবচেয়ে আলোচিত-সমালোচিত শব্দ হচ্ছে "ট্রল"। সহজ ভাষায় বলতে গেলে, ট্রল হচ্ছে লেখনী, ছবি বা ভিডিওর মাধ্যমে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে ব্যঙ্গাত্মকভাবে উপস্থাপন করা। আর ট্রল করতে যে ব্যঙ্গাত্মক বার্তামূলক ছবি ব্যবহৃত হয় তাকে মিম বলে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ট্রল ব্যাপারটা যেমন অনেকের কাছে শুধু বিনোদনের উৎস, তেমনি অনেকে মনে করেন এটা শুধু ঘৃণা ছড়ায়। আবার কারো কাছে ট্রল হচ্ছে প্রতিবাদের অভিনব পন্থা। তবে ভাল-মন্দ যা-ই হোক না কেন, বিশ্বের প্রায় সবদেশের সেলেব্রিটিরাই কমবেশি ট্রলের শিকার হন। সে হোক রাজনীতিবিদ, খেলোয়াড় কিংবা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব। বিভিন্ন কান্ড করে আলোচনায় আসা সাধারণ মানুষদের নিয়েও ট্রল করা হয়। আমাদের দেশেও বেশ কয়েকজন সেলেব্রিটি হর হামেশা ট্রলের শিকার হয়েছেন বা হয়ে আসছেন। তাদের মধ্যে ১০ জনকে নিয়েই আজকে আমাদের আলোচনা। তবে শুরু করা যাক। ১. আবুল হায়
সামাজিক ট্যাবু (নিষিদ্ধ বিষয়) নিয়ে নির্মিত ১০টি বাংলাদেশি সিনেমা

সামাজিক ট্যাবু (নিষিদ্ধ বিষয়) নিয়ে নির্মিত ১০টি বাংলাদেশি সিনেমা

প্রধান সংবাদ
লেখাটি শুরু করার আগে "ট্যাবু" বিষয়টি নিয়ে একটু আলোচনা করি। ট্যাবু শব্দের অর্থ "নিষিদ্ধ"। ট্যাবু বলতে এমন কিছুকে বোঝায় যা দেশের প্রচলিত আইনের চোখে অপরাধ না হলেও ধর্ম ও সমাজের চোখে নিষিদ্ধ বা গর্হিত কাজ। এক সমাজে যেটা প্রচলিত সংস্কৃতি, সেটা অন্য সমাজে ট্যাবু হতে পারে। আবার এক ধর্মের ট্যাবু অন্য ধর্মে পুণ্যের ব্যাপারও হতে পারে। যেমন আমেরিকান সমাজে বিয়ের আগে মেলামেশা, গর্ভধারণ বা সমকামিতা স্বাভাবিক ব্যাপার হলেও আমাদের দেশে সেগুলো ট্যাবু। আবার হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কাছে গরুর মাংস ট্যাবু হলেও মুসলমানদের জন্য তা হালাল। আসুন জেনে নেওয়া যাক এমন ১০টি বাংলাদেশি সিনেমা সম্পর্কে যেগুলোর বিষয়বস্তু আমাদের সমাজের চোখে ট্যাবু। ১. সারেং বউ (১৯৭৮):- এই ছবিটার পুরো অংশ জুড়ে রয়েছে কদম সারেং এর যুবতী বউ নবিতুনের অন্তহীন সংগ্রামের গল্প। কিন্তু ক্লাইম্যাক্সে যা ঘটে তা বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের ইতিহাসে অন্যত
নায়ক নয়, অভিনেতা শাকিব খানের সেরা ১০টি চলচ্চিত্র

নায়ক নয়, অভিনেতা শাকিব খানের সেরা ১০টি চলচ্চিত্র

বিনোদন
টাইটেল দেখে অনেকেই হয়তো ভাবতে পারেন, এ আবার কেমন কথা, নায়ক শাকিব খান আর অভিনেতা শাকিব খান আলাদা হয় কি করে ? তাদের উদ্দেশ্যে বলছি, এমনও সিনেমা দেখেছি, যেখানে অভিনয়ের "অ"ও না জানা ব্যক্তি মামা বা টাকার জোরে নায়িকার সাথে নাচগান করেই "নায়ক" খেতাব পেয়েছেন। তাদের আপনি "অভিনেতা" বলবেন কিভাবে ? আবার এমন বেশ কয়েকজন ব্যক্তি আছেন, যারা সারা জীবনে "নায়ক" না হলেও, নিজেদের অভিনয় দক্ষতা দিয়ে দর্শকমনে জায়গা করে নিয়েছেন। সুতরাং "নায়ক" প্রত্যয়টির চেয়ে অভিনেতা প্রত্যয়টি অনেক গভীর। আজ আমরা আলোচনা করব শাকিব খানের এমন ১০টি সিনেমা নিয়ে, যেগুলো তাকে "নায়ক" ইমেজকে ছাপিয়ে একজন ভাল অভিনেতা হিসেবে প্রমাণ করতে সহায়তা করেছে। ১. প্রাণের মানুষ (২০০৩):- দুই জানের জান বন্ধু (শাকিব খান ও ফেরদৌস) যাদের একজন আবার অন্ধ (ফেরদৌস) একই ভার্সিটিতে পড়ে। ঘটনাক্রমে দুজনই প্রেমে পড়ে যায় ভার্সিটির একই মেয়ের (শাবনূরের)। কিন্তু ন
বাংলাদেশের ১০টি রহস্যময় চলচ্চিত্র

বাংলাদেশের ১০টি রহস্যময় চলচ্চিত্র

বিনোদন
সারাবিশ্বে যত ঘরানার সিনেমা নির্মিত হয় সেগুলোর মধ্যে রহস্যধর্মী সিনেমা অন্যতম। মূলত অজানাকে জানা এবং রহস্যকে উন্মোচন করা মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি। আর এই কারণেই বিশ্বজুড়ে রহস্যময় গল্প, নোবেল ও সিনেমার এত চাহিদা। মূলত রহস্য এমন একটি প্রপঞ্চ যা প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত দর্শককে গল্পের মাঝে আটকে রাখতে পারে। দুঃখের ব্যাপার আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে রহস্যধর্মী সিনেমা নির্মাণের পরিমাণ খুবই কম। মুষ্টিমেয় যে কয়টি রহস্যধর্মী সিনেমা এই পর্যন্ত নির্মিত হয়েছে সেগুলো থেকে উল্লেখ করার মত ১০টি সিনেমা নিয়ে আজ আমরা আলোচনা করব। ১. কখনো আসেনি (১৯৬১):- একজন চিত্রশিল্পী আর তার দু’বোন একসঙ্গে রহস্যজনকভাবে মারা যায়।পুলিশ আবিষ্কার করে দু’বোন পাশাপাশি শুয়ে আছে এমন ছবি। একই বাড়িতে কিছুদিন পর বসবাস করতে আসে আরেকজন চিত্রশিল্পী, নাম শওকত আর তার দু’বোন। তাদের সামনের বাড়িতে থাকেন অদ্ভুত আত্মভোলা শিল্প সংগ্রাহক সু
যে ১০টি বাংলাদেশি চলচ্চিত্র সিনেমা হলের দর্শকদের কাঁদিয়েছিল

যে ১০টি বাংলাদেশি চলচ্চিত্র সিনেমা হলের দর্শকদের কাঁদিয়েছিল

বিনোদন
বলা হয়ে থাকে, একজন পরিচালক তখনই সার্থক যখন তিনি তার নির্মাণশৈলীর যাদুতে দর্শকদের গল্পের সাথে বেঁধে ফেলতে পারেন। আর একজন সার্থক অভিনেতা সে, যে তার অভিনয় দিয়ে সামনে বসা দর্শকদের বিশ্বাস করতে বাধ্য করে যে সে যা করছে বাস্তবই করছে। একজন ভাল নির্মাতা ও ভাল অভিনেতার সমন্বয়ে কোন কাজ যখন দর্শকদের সামনে পৌঁছায় তখন দর্শকরাও সেই কাজের মাঝে এমনভাবে ঢুকে যায় যাতে পর্দার লোকদের হাসিতে তারা হাসে, তাদের কান্নায় তারা কাঁদে, মজা পেয়ে হাততালি দেয়, শিস বাজায়। আজ আমরা এমন ১০টি সার্থক বাংলাদেশি সিনেমা নিয়ে আলোচনা করব যেগুলো হৃদয়ছোঁয়া গল্প, নির্মাতাদের মুন্সিয়ানা ও অভিনয়শিল্পীদের হৃদয় উজাড় করা অভিনয়ের জন্য সিনেমা দেখতে আসা দর্শকদের কান্নার কারণ হয়েছিল। ১. ছুটির ঘন্টা (১৯৮০):- ঈদের ছুটি ঘোষণার দিন স্কুলের বাথরুমে সকলের অজান্তে তালা বন্ধ হয়ে আটকে পড়ে ১২ বছর বয়সের এক ছাত্র খোকন। তালা বন্ধ বাথরুমে দীর্ঘ ১
এবার ভারতের জামাই হতে যাচ্ছেন ম্যাক্সওয়েল

এবার ভারতের জামাই হতে যাচ্ছেন ম্যাক্সওয়েল

ক্রিকেট, খেলা
বর হিসেবে ভরতীয় ছেলেরা হয়তো খুব একটা সুবিধার নয়! আর তাইতো ভারতীয় মেয়েরা ঝুঁকে পড়েন বিদেশি ছেলেদের দিকে। অবশ্য বিদেশি ছেলেদের পটাতে যেন ওস্তাদও ভারতীয় মেয়েরা। শোয়েব মালিক-সানিয়া মির্জার পর কদিন আগেই দুবাইয়ে মহা ধুমধাম করে হয়ে গেল আরেক পাকিস্তানি-পেসার হাসান আলির বিয়ে। কনে ভারতীয় কন্যা শামিয়া আরজু। এবার তাদের দেখানো পথে বোধ হয় ভারতের ‘জামাই’ হতে যাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার মারকুটে অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলও। ভারতীয় এক কন্যার সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করে বেড়াচ্ছেন তিনি। ম্যাক্সওয়েলের এই প্রেমিকার নাম ভিনি রমন। তিনিই মূলত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেছেন, ম্যাক্সওয়েলের সঙ্গে তার ডেটিংয়ের ছবি ও ভিডিও। একটি নয়, কয়েকটি। ভারতীয় কন্যার প্রেমে পড়া অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ক্রিকেটার অবশ্য ম্যাক্সওয়েল নন। তার আগে ২০১৪ সালে মাসুম সিং নামে ভারতীয় এক মেয়েকে বিয়ে করেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক পেসার শন টেইট। ম্য
তারা ছোট পর্দায় রাজত্ব করে বড় পর্দাও জয় করেছেন

তারা ছোট পর্দায় রাজত্ব করে বড় পর্দাও জয় করেছেন

বিনোদন
এক শ্রেণীর দর্শক আছেন, যারা নাটক বা টেলিফিল্মের তারকাদের অর্থাৎ ছোট পর্দার শিল্পীদেরই শুধু খোঁজখবর রাখেন। সিনেমা বা বড় পর্দা নিয়ে তাদের কোন মাথাব্যাথা নেই। আবার অনেকের কাছে সিনেমার তারকা বাদে টিভি নাটকের শিল্পীদের নিয়ে ভাবার সময় নেই। তবে বড় পর্দা নাকি ছোট পর্দার তারকাদের জনপ্রিয়তা বেশি আমরা সেই তর্কে যাবো না। কারন এমন অনেক তারকা আছেন যারা ছোট পর্দার মাধ্যমে মিডিয়ায় আগমন করলেও পরবর্তীতে তারা বড় পর্দায় থিতু হয়েছেন। আবার অনেকে বড় পর্দার মাধ্যমে মিডিয়ায় এসেও পরবর্তীতে ছোট পর্দায় কাজ চালিয়ে গেছেন। আমরা আজ আলোচনা করব ছোট পর্দার এমন ১০ জন তারকাদের নিয়ে যারা ছোট পর্দায় রাজত্ব করার পাশাপাশি সমানতালে জয় করে চলছেন বড় পর্দার দর্শকদের মনও। ১. চঞ্চল চৌধুরীঃ- ছোট পর্দার অন্যতম জনপ্রিয় মুখ হলেন চঞ্চল চৌধুরী। তার সাবলীল অভিনয়শৈলী দিয়ে খুব সহজেই তিনি যেকোন চরিত্রে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারেন। ২০০৬ সাল
এপ্রিল ২৫ এর কাছে হেরে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় ঢাকা আবহানীর

এপ্রিল ২৫ এর কাছে হেরে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় ঢাকা আবহানীর

খেলা, ফুটবল
এএফসি কাপের ইন্টার জোনাল সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভের কাছে হেরেছে আবাহনী। আবাহনী লিমিটেড ২-০ এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ। (গোল গড়ে ৫-৪ ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় ফাইনালে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভ)। প্রথম বাংলাদেশি ক্লাব হিসেবে এএফসি কাপের ইন্টার জোনাল ফাইনালে খেলা হচ্ছে না আবাহনীর। আজ পিয়ংইয়ংয়ে সেমির দ্বিতীয় লেগে ২-০ গোলে হেরেছে আকাশি নীলেরা। ম্যাচের প্রথমার্ধ ছিল সমানে-সমান। দুই দলই লড়েছে চোখে চোখ রেখে। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধের ৪৮ মিনিটে বদলি খেলোয়াড় কিম সু ইয়ং গোল করে এপ্রিল টোয়েন্টি ফাইভকে এগিয়ে নেন। আবাহনীর ম্যাচে ফেরার সম্ভাবনা শেষ হয়ে যায় মামুন মিয়ার লাল কার্ডে। ১০ জনের দল নিয়ে আবাহনীর জন্য পুরো ব্যাপারটা প্রায় কঠিন হয়ে যায়। আবাহনীর সর্বনাশের শেষটা হয় ৮৩ মিনিটে কিম নিজের দ্বিতীয় গোলটি করলে।