তথ্য-প্রযুক্তি

সাইবার ক্রাইম নিয়ে নির্মিত যত বাংলাদেশী সিনেমা

সাইবার ক্রাইম নিয়ে নির্মিত যত বাংলাদেশী সিনেমা

তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে আমাদের জীবন যেমন সহজতর হয়েছে, তেমনি আমাদের গোপনীয়তা পড়েছে হুমকির মুখে। তথ্যপ্রযুক্তিরই অপব্যবহার করে কিছু অসাধু জ্ঞানপাপী করে চলছেন একের পর এক অপকর্ম। যাকে আধুনিক ভাষায় সাইবার ক্রাইম বলা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সাইবার ক্রাইম নিয়ে সিনেমা নির্মিত হয়েছে এবং হচ্ছে। আমাদের দেশে এর পরিমাণ খুবই সীমিত। আজ সেসকল সিনেমা নিয়েই আমরা আলোচনা করবো। তবে শুরু করা যাক। ১. নজর (২০০৬):- আইনের প্রতি আস্থা হারিয়ে সাধারণ মানুষ ন্যায়বিচারের জন্য আশ্রয় চায় www.crime.com এর কাছে। এই সাইটটি চালায় ৫ জন সাইবার বিশেষজ্ঞ চৌকস যুবক। যারা অভিযপেয়েই আইন নিজের হাতে তুলে নিয়ে অপরাধীকে শাস্তি দেয়। প্রশাসন সেই ৫ যুবককে পাকড়াও করতে দায়িত্ব দেয় এক সুকৌশলী পুলিশ অফিসারকে। এমনই গল্প নিয়ে যুগল পরিচালক অপূর্ব রানা নির্মাণ করেন দেশের প্রথম সাইবার ক্রাইম মুভি "নজর"। সিনেমাটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছে
বাংলাদেশের যত সায়েন্স ফিকশন সিনেমা <=> Sci-fi Movies Of Bangladesh

বাংলাদেশের যত সায়েন্স ফিকশন সিনেমা <=> Sci-fi Movies Of Bangladesh

আপনি যদি হলিউডের কিংবদন্তী পরিচালক স্টিভেন স্পিলবার্গের হাতে এক কোটি টাকা তুলে দিয়ে বলেন এটা দিয়ে একটা চোখ ধাঁধানো সায়েন্স ফিকশন সিনেমা বানিয়ে দিন। উনি হয়তো সাথে সাথে উত্তেজিত হয়ে হার্ট অ্যাটাক করবেন, নয়তো ঠান্ডা মাথায় বলবেন "এই টাকা দিয়ে আমি দুয়েকটা সিকোয়েন্স হয়তো শুট করতে পারবো, গোটা সিনেমা সম্ভব নয়"। অথচ আমি বাংলাদেশের এমন কয়েকজন নির্মাতাদের চিনি যারা এর চেয়ে কম খরচে বাংলাদেশে Avatar বানিয়ে দেখাতে পারবেন। তবে শর্ত একটাই "মান চাহিয়া লজ্জা দেবেন না"। ব্যাপারটা হাস্যকর মনে হলেও এটাই সত্য যে আমাদের নির্মাতাদের অনেক প্রতিকূলতা ও আর্থিক সংকটের মধ্যে সিনেমা নির্মাণ করতে হয়। সেখানে মান ঠিক রাখা সম্ভবপর হয় না। তারপরও বিভিন্ন সময়ে বেশকয়েকজন সাহসী নির্মাতা এতসব প্রতিকূলতার মাঝেও আমাদের কিছু সায়েন্স ফিকশন সিনেমা উপহার দিয়েছেন। আমরা আজ সেগুলো নিয়েই আলোচনা করবো। তবে শুরু করা যাক। ১. সুপারম্যা
জেনে নিন আপনার পরিচিত ১০টি ফেসবুক মীম (Meme) এর ইতিহাস

জেনে নিন আপনার পরিচিত ১০টি ফেসবুক মীম (Meme) এর ইতিহাস

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সবচেয়ে পরিচিত ও জনপ্রিয় একটি বিষয় হচ্ছে মীম (Meme). সহজ ভাষায় বলতে গেলে মীম হচ্ছে অনলাইনে ব্যবহৃত এমন সব বার্তামূলক ছবি বা তথ্য যার মাধ্যমে একজন হাস্যরসাত্মক বা রুপকার্থে নিজের মনোভাব বা ধারনা আরেকজনের কাছে প্রকাশ করতে পারে। মীম অনেক সময় নিছক মজার জন্য বা কাউকে অপমানের জন্য ব্যবহৃত হয়। আবার অনেক সময় মীম-ই হয় সমাজের বাস্তবতা তুলে ধরা ও প্রতিবাদের অন্যতম হাতিয়ার। ফেসবুক ও টুইটার ব্যবহারকারীরা প্রায়শই মীম পছন্দ করেন এবং অনেকেই নিয়মিত ব্যবহার করেন। তবে সকলেই সেই মীমের উৎপত্তি বা ইতিহাস সম্পর্কে কিছুই জানেন না। আজ আমরা আপনাদের জানাবো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে আমাদের পরিচিত ও অতি জনপ্রিয় ১০টি মীমের উৎপত্তি ও বিকাশ সম্পর্কে। তবে শুরু করা যাক। ১. ইয়াও মিং-এর চেহারা (Yao Ming Face Meme) এই মীমটা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ব্যবহৃত সবচেয়ে পরিচিত ও জনপ্রিয়
শুরু হচ্ছে উইকিপিডিয়া আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা

শুরু হচ্ছে উইকিপিডিয়া আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা

সরকার নুহাশ : দেশের সংরক্ষিত প্রাকৃতিক বনাঞ্চল ও এর জীববৈচিত্র্যের ছবি নিয়ে বাংলাদেশে তৃতীয়বারের মতো শুরু হচ্ছে উইকিপিডিয়ার আলোকচিত্র প্রতিযোগিতা ‘উইকি লাভস আর্থ ২০১৯’ (ডব্লিউএলই)। এ বছর ৩৫টি দেশে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এক মাসব্যাপী এ প্রতিযোগিতা শনিবার (১ জুন) থেকে শুরু হয়ে চলবে ৩০ জুন পর্যন্ত। ২০১৭ সাল থেকে বাংলাদেশে প্রতিযোগিতাটি আয়োজন করছে ‘উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ’। বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সংরক্ষিত অঞ্চলের যেকোনো সময় তোলা ছবি জমা দিয়ে প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া যাবে। প্রতিযোগিতায় একজন একাধিক ছবি জমা দিতে পারবেন। প্রতিযোগিতা শেষে প্রতিটি দেশ থেকে সেরা ১০টি ছবি আন্তর্জাতিক জুরিদের কাছে পাঠানো হবে এবং সব দেশের ছবি থেকে সেরা ১৫টি ছবি আন্তর্জাতিকভাবে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে। আন্তর্জাতিকভাবে প্রথম বিজয়ী ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় উইকিপিডিয়ার বার্ষিক সম্মেলন ‘উইকিম্যা
ফেসবুকে ৩০০ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট ‘ডিলিট’

ফেসবুকে ৩০০ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট ‘ডিলিট’

তথ্য-প্রযুক্তি
গত ছয় মাসে ৩০০ কোটিরও বেশি ভুয়া অ্যাকাউন্ট ‘ডিলিট করলো’ ফেসবুক। সাম্প্রতিক এক বিবৃতিতে ফেসবুক এ তথ্য জানিয়েছে। ফেসবুক জানায়, ২০১৮ সালের অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত এসব ভুয়া অ্যাকাউন্ট ডিলিট করা হয়েছে। ভুয়া অ্যাকাউন্টের সংখ্যা আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। ফেসবুকের ধারণা প্রতি মাসে ২৪০ কোটি সচল অ্যাকাউন্টের মধ্যে প্রায় ৫ শতাংশ বা ১২ কোটি অ্যাকাউন্টই ভুয়া। এর আগের হিসাবের তুলনায় এবারের হিসাবে ভুয়া অ্যাকাউন্টের সংখ্যা ১ থেকে ২ শতাংশ বেড়েছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর শেষে ফেসবুকের মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারী ২৩০ কোটিতে পৌঁছেছে। বিশ্বব্যাপী মাসিক সক্রিয় ব্যবহারকারীর অন্তত ৫ শতাংশ ভুয়া অ্যাকাউন্টধারী। এসব অ্যাকাউন্ট ভারত, ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনের মতো দেশগুলোয় সবচেয়ে বেশি বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
হ্যাকারদের থেকে যেভাবে বাঁচবেন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীরা

হ্যাকারদের থেকে যেভাবে বাঁচবেন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীরা

তথ্য-প্রযুক্তি
হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের সব তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে হ্যাকাররা। ডিসকাউন্ট অফারের ভুয়া মেসেজের পর এবার হোয়াটসঅ্যাপ কলের মাধ্যমে একের পর এক স্মার্টফোন হ্যাক করছে তারা। জানা গেছে, হোয়াটসঅ্যাপ এর ডেটা সুরক্ষা ভেদ করে বিশ্বের কয়েক কোটি গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য এখন হ্যাকারদের কাছে। এই সমস্যার সমাধান করতে নতুন আপডেট পাঠিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ। নিজেদের সব গ্রাহককে নতুন আপডেট অ্যাকটিভ করার পরামর্শ দিয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই মেসেজিং অ্যাপ। নতুন আপডেট অ্যাকটিভ না করলে বড় বিপদের মুখে হতে পড়তে পারে লাখ লাখ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীকে। একটি বিবৃতিতে হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, মে মাসের শুরুতেই এই সমস্যাটি ধরা পড়ে। এজন্য হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের কিছুই করার নেই। হোয়াটসঅ্যাপ কল এলেই ম্যালোয়্যার ঢুকে পড়ছে ফোনে। বিশ্বের প্রায় ১৫০ কোটি মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন। হ্যাকারদের হাত
আপনি কি করছেন সবকিছু জানে গুগল! জেনে রাখুন নিয়ন্ত্রণের উপায়

আপনি কি করছেন সবকিছু জানে গুগল! জেনে রাখুন নিয়ন্ত্রণের উপায়

তথ্য-প্রযুক্তি
ব্যবহারকারীর তথ্য সংরক্ষণ নীতিমালায় পরিবর্তন আনছে গুগল। এতদিন গুগল তার বিভিন্ন সেবার ব্যবহারকারীর সব তথ্যই অনায়াসেই পেয়ে যেত। তবে এখন থেকে নির্ধারণ করতে পারবেন যে, আপনি কোন তথ্য গুগলকে দিতে চান। আপনি চাইলেই মাই গুগল অ্যাক্টিভিটি পেজে গিয়ে, 'ওয়েব অ্যান্ড অ্যাপ অ্যাক্টিভিটি' অপশনে ক্লিক করে গুগলকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য জানতে বাধা দিতে পারেন। মনে করেন, আপনার মোবাইলের জিপিএস অ্যাকটিভ করা। তাহলে আপনার বাড়ি কোথায়, কোথায় ঘুরতে যাচ্ছেন, আপনার অফিস কোথায়, এ সব তথ্য খবু সহজেই জেনে যেত গুগল। এতদিন আপনার অগোচরে গুগল আপনার ব্যক্তিগত তথ্য এভাবেই সংগ্রহ করে রাখতো। এখনই চাইলেই আপনার সম্পর্কে কতটা গুগলকে জানতে দেবেন সেই অনুমতি দিতে পারবেন। যা এতদিন ছিল না। গুগল অ্যাকাউন্টে অন/অফ ব্যবহার করে লোকেশন হিস্ট্রি এবং ওয়েব-অ্যাপ অ্যাকটিভিটি যেমন নিয়ন্ত্রণ করেন ঠিক তেমনই ম্যানুয়েলি ডিলিটও করতে পারবেন।
মিস বাংলাদেশ ঐশীর ফেসবুক আইডি হ্যাকড, হ্যাকারের হুমকি

মিস বাংলাদেশ ঐশীর ফেসবুক আইডি হ্যাকড, হ্যাকারের হুমকি

তথ্য-প্রযুক্তি, বিনোদন
বাংলাদেশের মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌসী ঐশী ‘বিশ্ব সুন্দরী’ প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বে অংশ নিয়ে ব্যাপক আলোচনায় আসেন। এর পর দেশে ফিরে গানের ভিডিও আর বিজ্ঞাপনচিত্রের মডেল হিসেবেও কাজ শুরু করেছেন। এরইমধ্যে ‘মিশন এক্সট্রিম’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে রুপালি পর্দায় অভিষেকের অপেক্ষায় আছেন এই দেশী সুন্দরী। ছবিটিতে তার বিরপরীতে আছেন আরিফিন শুভ। এমন সুসময়েও বিড়ম্বনার মুখে পড়েছেন ঐশী। কে বা কারা মঙ্গলবার রাতে তার ফেসবুক আইডি ও পেজ হ্যাক করে দিয়েছে।  এ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ঐশী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমার আইডিটি এর আগেও একবার হ্যাক হয়েছিল। তখন উদ্ধার করেছিলাম। এবার আইডি ও পেজ দুটোই হ্যাক হয়েছে। কী করব বুঝতে পারছি না। বিষয়টি আমি সাইবার ক্রাইম কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি।’ তবে হ্যাকাররা ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে ঐশীর সঙ্গে যোগাযোগ করছেন।  পিরোজপুরের এই দেশি সুন্দরী বলেন, ‘হ্যাকার আমার কাছে টাকা দাবি ক
গুগলে প্রথম বাংলাদেশি ডিরেক্টর হলেন জাহিদ

গুগলে প্রথম বাংলাদেশি ডিরেক্টর হলেন জাহিদ

জাহিদ সবুর- ছবি ইন্টারনেট টেক জায়ান্ট গুগলে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ডিরেক্টর হিসেবে পদোন্নতি পেলেন বাংলাদেশের ছেলে জাহিদ সবুর। গত ২ মে গুগলের ডিরেক্টর এবং ১ নম্বর কোড জেনারেটর (প্রিন্সিপাল ইঞ্জিনিয়ার) হিসেবে তাকে পদোন্নতি দেওয়া হয়। নিজের ফেসবুক ওয়ালে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছেন জাহিদ সবুর। তিনি লিখেছেন, "মধ্য ত্রিশে এসে আমি আজ যে পর্যায়ে এসে পৌঁছেছি তা আমি কখনও স্বপ্নেও ভাবিনি। কিন্তু আমি আমার বর্তমান অবস্থানের চাইতেও এই পর্যায়ে আসতে আমাকে যে কঠিন পথ পার করে আসতে হয়েছে সেটা নিয়ে বেশি গর্বিত"। "আপনাদের হৃদয়ের গভীর থেকে ধন্যবাদ। আপনাদের দোয়া ছাড়া আমি এতোদূর আসতে পারতাম না"।  আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (এআইইউবি) থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন জাহিদ সবুর। তার সিজিপিএ ছিল ৪.০। এরপর ২০০৭ সালে ভারতের ব্যাঙ্গালুরুতে ব্যাকেন্ড সিস্টেম ডেভেলপ
এখন হোয়াটসঅ্যাপে আটকাতে পারবেন স্ক্রিণ শর্ট

এখন হোয়াটসঅ্যাপে আটকাতে পারবেন স্ক্রিণ শর্ট

তথ্য-প্রযুক্তি
চ্যাটিংয়ের স্ক্রিনশট নেওয়ায় বাধা দিতে নতুন আপডেট আনছে হোয়াটসঅ্যাপ। নতুন আপডেটে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানিং নিয়েও পরীক্ষা চালাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। এর মাধ্যমে হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাটিং অ্যাকসেস করতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যান করতে হবে গ্রাহককে। ইতোমধ্যেই আইওএস সংস্করণে ফিচারটি যোগ করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। কিন্তু আইওএস ডিভাইসে প্রতিটি কথোপকথন আলাদাভাবে লক করা থাকে। ফলে বারবার ফিঙ্গার স্ক্যান করে চ্যাটিংয়ে ঢুকতে হয় গ্রাহককে। এবার পুরো অ্যাপটিই ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানংয়ের আওতায় আনার লক্ষ্যে কাজ করছে হোয়াটসঅ্যাপ-- খবর ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড মিররের। জানুয়ারিতে ওয়াবেটালইনফো জানায়, “পুরো অ্যাপটিই সুরক্ষিত করা হবে, ফলে হোয়াটসঅ্যাপ চালু করতে গ্রাহককে তার পরিচয় শনাক্ত করতে হবে।” “এটি পুরো অ্যাপকেই সুরক্ষা দেবে, আলাদা আলাদা কথপোকথন লক করতে এটি ব্যবহার করা হবে না।” এবার ধারণা করা হচ্ছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানিং চ