লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টারের উপস্থাপনা করতে চাই: টয়া

ছোটপর্দার প্রিয় মুখ মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া। ২০১০ সালের ‘লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার’ প্রতিযোগিতা থেকে এসে রুমানা রশীদ ঈশিতার পরিচালনায় ‘অদেখা মেঘের কাব্য’ টেলিফিল্মে প্রথম অভিনয় করেন তিনি। টেলিফিল্মটি ২০১১ সালের ভালোবাসা দিবসে চ্যানেল আইয়ে প্রচার হয়। এরপর বিভিন্ন নাটক, টেলিফিল্ম এবং বিজ্ঞাপনে অংশ নিয়ে নিজেকে পরিচিত করেছেন টয়া। গতকাল ছিল এ অভিনেত্রীর জন্মদিন।জন্মদিন প্রসঙ্গে টয়া জানান, মঙ্গলবার রাতে ইভেন্ট শেষ করে বগুড়া থেকে ঢাকা ফিরেছেন তিনি। ওই দিন রাতে কাছের বন্ধুরা বাসায় গিয়ে সারপ্রাইজ দিয়েছে। গতকাল বিকালে একটি লাইভে অংশ নিয়েছেন এ অভিনেত্রী। পরে রাতে আবার বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিয়ে সময় পার করেছেন। টয়া এ মুহূর্তে ব্যস্ত রয়েছেন ঈদের কাজ নিয়ে। সম্প্রতি শ্রীমঙ্গলে চারটি ঈদের নাটকের কাজ করেছেন তিনি। আরও চারটি নাটকে শিডিউল দেয়া আছে। পাশাপাশি কথা চলছে নতুন কাজের।সম্প্রতি চ্যানেল আইয়ের রিয়েলিটি শো ‘গানের রাজা’ উপস্থাপনা করেছেন টয়া। উপস্থাপনা প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘রিয়েলিটি শোগুলো করতেই আমার ভালো লাগে। আমার ইচ্ছা ‘লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার’ অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করার। কারণ, আমি এ রিয়েলিটি শো থেকেই এসেছি। এটার কারণেই আজকে আমি টয়া। এ অনুষ্ঠানের সঙ্গে আমার অনেক বেশি ইমোশন জড়িয়ে আছে। যদি কখনো সৌভাগ্য হয়, তাহলে এ অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনা করতে চাই।’সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের পাশাপাশি ইউটিউবেও বেশ সক্রিয় এ অভিনেত্রী। সম্প্রতি নিজের নামে নতুন একটি চ্যানেল খুলেছেন তিনি। জানিয়ে টয়া আরও বলেন, ‘আমার আর সাফা কবিরের একটা চ্যানেল আছে। সেটা তো চলছেই। এরই মধ্যে আমি ব্যক্তিগতভাবে একটা চ্যানেল করেছি ‘টয়া টিউব’ নামে। এই চ্যানেলে আমার কাজের বিহাইন্ড দ্য সিনগুলো রাখার পরিকল্পনা আছে। আসলে দর্শক তো আমাদের কাজটাই দেখে। কিন্তু কাজটা করতে গিয়ে আমরা কত পরিশ্রম করি, কত প্রস্তুতি নিই সেগুলো দেখে না। আমার এ চ্যানেলের মাধ্যমে সেগুলো দেখাতে চাই।’বিয়ে কবে করবেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে স্বভাবসুলভ হেসে ওঠেন টয়া। তিনি বলেন, ‘এই বিয়ে-শাদি নিয়ে আমার মাথা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। জানি না বিয়ে কবে হবে। সেটা তো পুরোপুরি আল্লাহর ওপর।’ এর আগে আমাকে একবার বলেছিলেন, পছন্দের কাউকে পেলে বিয়ে করবেন। পাননি? টয়ার সাফ উত্তর, ‘না এখনো পাইনি। সত্যি বলছি, এখনো পছন্দের কাউকে পাইনি। ফ্যামিলি থেকে সবাই বলছে এ বছর বিয়ে করে ফেলতে।’কিছুদিন আগে ‘গুজব নাকি সত্যি’ শিরোনামে খবর দেখলাম আপনাকে নিয়ে। প্রশ্ন শেষ না হতেই টয়া বলেন, ‘আসলে আমরা খুব ক্লোজ ফ্রেন্ড। ওটাকে গুজব নাকি সত্যি লিখে একটা কোয়েশ্চেন মার্ক দিয়ে একজন পত্রিকায় খুব সুন্দর করে লিখে দিয়েছেন। আমরা খুব ভালো ফ্রেন্ড। আমরা একসঙ্গে হ্যাং আউট করি। ফ্রেন্ডরাতো একসঙ্গে হ্যাং আউট করেই। তাই না? এটাকে একটি পত্রিকার রিপোর্টার আমার সঙ্গে কথা না বলেই ছাপিয়ে দিয়েছে। আমার সঙ্গে কথা না বলে নিউজ করলে তো আমার ব্যক্তিগত লাইফ হ্যাম্পার হয়। কারণ ফিউচারে আমি যাকে বিয়ে করব তিনি তো একটা প্রশ্ন ছুড়ে দিতেই পারেন। নিউজটা দেখে হয়তো উনি বলতেই পারেন, যে তোমার সঙ্গে ওর সর্ম্পক ছিল। যেখানে কিনা আমাদের কিছুই নেই। অনেক সময় এরকম ছোটখাটো নিউজগুলোর কারণে ফেন্ডশিপও নষ্ট হয়।’টয়া মনে করেন, তিনি এখনো শিখছেন। আট বছরের ক্যারিয়ারে অনেক চড়াই উতরাই পার করতে হয়েছে এ অভিনেত্রীকে। ভালো-মন্দ শিখেই তিনি আজকের এ অবস্থানে। টয়ার ইচ্ছা আরও ভালো কাজ করে নিজের অবস্থান ধরে রাখার। তার জন্য তাড়াহুড়ো করতে চান না তিনি। বুঝে শুনে কাজ করতে চান অনেক দিন।

আরো পড়ুন :   ভারতীয়রা জানোয়ারের থেকেও খারাপ : মোনালী ঠাকুর

Leave a Reply

Your email address will not be published.