1. himucinemakhor1@gmail.com : Himel Himu : Himel Himu
  2. hridoyahammed2018@gmail.com : hridoyahmmed :
  3. jubayer.jay@gmail.com : Jubayer Ahmed : Jubayer Ahmed
  4. mdridoysamrat2014@gmail.com : samrat :
  5. shahabuddin1234@gmail.com : Suheb Khan : Suheb Khan
  6. admin@sylhetmail24.com : সিলেটমেইল২৪ ডটকম :
মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াড নিয়ে ভাবনা- নাদিম হাসান ইমন

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৯
  • ৫১ বার পড়া হয়েছে

আসন্ন ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে বাংলাদেশের স্কোয়াড ও পরিকল্প।

আপনার বেঞ্চ যত শক্তিশালী হবে আপনার দলের পারফরমেন্সও তত বৃদ্ধি পাবে। সেদিন আইপিএলে সিলেক্ট ডাগআউট এ এমন কথাই বলছিলেন ডিন জোন্স।

বেঞ্চ শক্তিশালী হলে একাদশে থাকা ক্রিকেটারদের পারফরমেন্সের তাগিদও বেড়ে যায় অনেক।

রাহি বেঞ্চে বসে একাদশের কাউকে সেই তাগিদটা কি দিতে পারবেন? মনে হয় না।

ফিজ-মাশরাফি-রুবেল ফিক্সড। এই তিন পেসার নিয়ে প্রায় সব ম্যাচই মোটামুটি ফিক্সড হয়ে গেলে!!! খারাপ করলেও বাদ যাওয়ার সম্ভবনা কিঞ্চিতই।

তাসকিন থাকলে লাভের লাভই হতো অনেকগুলো।রুবেল -মুস্তাফিজকে রোজ সেরাটাই দিতে হতো।খারাপ করলে বসতে হবে জেনে হয়তো আরও শানিত করতো নিজেদের। কারন তাসকিন মোটামুটি তাদের পর্যায়েরই।

রাহি তাদের সমকক্ষও না। অভিজ্ঞতাও নাই। রাহির সাথে তাই লড়াইও করতে হবে না।

তাসকিনের ব্যাখ্যা যা দিয়েছে সেটা নিয়ে বলার নাই। ফিজিও না,তাসকিনকে দেখিও নাই। রাখলে খারাপ হতো না। এখন অনেকসময় বাকি। ১ মাসে ইমপ্রুভ না হলে ২২ মে পরিবর্তনও করা যেতো। অস্ট্রেলিয়া স্টার্ক এবং কাউন্টার নাইলকে রেখেই দলে করেছে।

তবে নেবেই যখন ভালো কাউকে নিতো।রাহি কেন? এবাদত হোসেন খারাপ অপশন ছিলো না। ১২৫-১৩০ এর বল এখন ট্যালেন্ডাররাও ভয় পায় না। রাহির দৌড় এই অবধি। সুইং করান তাও ১০ বল পর পর…. এবাদতের গতি ছিল।বাউন্সও ভালো দেন।

রাহির টেস্ট টি২০ মিলিয়ে মাত্র ১০ ইনিংস বল করেছেন এবাদত সেখানে ৩ ইনিংস। অভিজ্ঞতার বাহার রাহির কাছেও নাই।

ইমরুল কিংবা বাকিদের নিয়ে বেশি কথা বলার ইচ্ছা নাই।

তবে টুইস্ট হয়তো একটা আসতেও পারে। ২২ মে অবধি পরিবর্তনের সীমা আছে।

সৌম্য লিটন দুজনের জন্য আয়ারল্যান্ড সফর বেশ গুরুত্বপূর্ণ। খুব ভালো ফর্মে নাই কেউ। সবার আস্থা তাদের উপর আছে। এত আস্থার মধ্যেও ত্রিদেশীয় সিরিজ ভরপুর ফ্লপ হলে নড়তেই পারে সবার আস্থা।

দুইজনই খুব বাজে ফ্লপ শো করলে অফফর্মের দুজনকে বিশ্বকাপে নেয়ার রিস্ক থেকে সরেও আসতে পারে বোর্ড।সেক্ষেত্রে একজনকে রেখে আরেকজনকে ছাটাও হতে পারে।

কপাল চাওড়া হতে পারে অনেকেরই। সময় বলবে সব। যারা ডাক পায়নি তাদের উচিত নিজেদের সেরাটা দিয়ে প্রস্তুত থাকা।

লিখেছেনঃ- নাদিম হাসান ইমন (ক্রিকসেল)

অনুগ্রহ করে শেয়ার করুন

আরো পড়ুন
© 2020 All rights reserved by sylhetmail multimedia
Develop By sylhetmail24.com