বরগুনার রিফাত হত্যার নতুন ভিডিও ফাঁস (ভিডিও সহ)

বরগুনায় প্রকাশ্যে নৃশংসভাবে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফ হত্যার দিনের সিসিটিভি ফুটেজ ঘটনাস্থলের সামনের একটি বাসা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে দেখা যায় হত্যার মূল ভূমিকায় ছিল মামলার দ্বিতীয় আসামি রিফাত ফরাজি।
সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, ২৬শে জুন বুধবার সকাল থেকেই বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে নানা পরিকল্পনা করতে থাকে ‘বন্ড ০০৭’ গ্যাং গ্রুপের সদস্যরা। হঠাৎ কলেজ থেকে তারা জোর করে রিফাত শরীফকে বের করে নিয়ে যায়। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ওইদিন সরাসরি ১৫ থেকে ২০ জন জড়িত ছিল। তবে কিলিং মিশনে মূল ভূমিকা পালন করে দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজি।
‘বন্ড ০০৭’ গ্রুপের সদস্যরা মাত্র ২ মিনিটের মধ্যেই তাদের মিশন শেষ করে চলে যায়। রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনার পরিকল্পনাকারী নয়ন বন্ড হলেও কিলিং মিশনে মূল ভূমিকা পালন করে এ হত্যা মামলার দুই নম্বর আসামি রিফাত ফরাজি।
ফুটেজে রিফাত ফরাজীকে দেখা যায় কালো জামা ও চোখে কালো চশমা পরা অবস্থায়। এ সময় তাঁর ছয়-সাতজন সঙ্গী অপেক্ষা করছিলেন কলেজ গেটের বাইরে। মিনিট দুয়েক পর রিফাত ফরাজী তার দু-তিনজন সঙ্গীকে কলেজের ভেতরে পাঠান। হাতে মুঠোফোন নিয়ে রিফাত ফরাজী নিজে কলেজ গেটের সামনের রাস্তার উত্তর পাশে অবস্থান নেন। তাঁকে তিন-চারজনকে নির্দেশনা দিতে দেখা যায়। তিনি তরুণদের কলেজ গেটের উল্টো দিকে অবস্থান নিতে বলেন।
পরে রিফাত শরীফ তাঁর স্ত্রীকে নিয়ে কলেজ গেট থেকে বের হন। তাঁরা মোটরসাইকেলে উঠে চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। হঠাৎ রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়শা রিফাত ফরাজী ও তাঁর সাঙ্গপাঙ্গদের দেখে স্বামীকে ভেতরে টেনে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। পৌঁছানোর আগে রিফাত ফরাজীর নেতৃত্বে ৮ থেকে ১০ জন সন্ত্রাসী রিফাত শরীফকে ধরে ফেলে। কিল, ঘুষি দিতে দিতে মূল ফটকের সামনের সড়ক থেকে পুব দিকে নিয়ে যায় তারা। সেখানেই প্রথম দেখা যায় নয়ন বন্ড ও অন্য সন্ত্রাসীদের। নয়ন বন্ডের কাছে রিফাত শরীফকে নিয়ে যাওয়ার পর ১৫-১৬ জন তাঁকে ঘিরে ধরে পেটাতে শুরু করে।

আরো পড়ুন :   চতুর্থবারের মতো সেরা নায়ক শাকিব খান

এ সময় রিফাত ফরাজী ও তাঁর অপর এক সহযোগী দৌড়ে কাছাকাছি কোথাও লুকিয়ে রাখা দুটি রামদা নিয়ে আসেন। এর একটি রামদা নয়নের হাতে দিয়ে রিফাত ফরাজী প্রথমেই রিফাত শরীফকে কোপাতে শুরু করেন। এরপর রিফাত ফরাজী ও নয়ন বন্ড দুজনে মিলে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন রিফাত শরীফকে। আর সন্ত্রাসীদের হাত থেকে স্বামীকে বাঁচাতে প্রাণপণ চেষ্টা করে যান স্ত্রী আয়শা।
নতুন এই ভিডিওতে দেখা যায়, রিফাত শরীফকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করার পর সন্ত্রাসী রিফাত ফরাজী ও নয়ন বন্ড রামদা হাতে সবার সামনে দিয়ে সঙ্গীদের নিয়ে ঘটনাস্থলের পশ্চিম দিকে চলে যান। তখন রিফাত শরীফের রক্তে ভেসে যাচ্ছে গোটা পথ।
ভিডিওটি দেখে মনে হয়েছে রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ড ছিল সুশৃঙ্খল ও পরিকল্পিত। কেউ কিছু আঁচ করার আগেই তাঁরা এই হত্যা পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করেছিলেন।
নতুন ভিডিওতে দেখা যায়, রিফাত শরীফকে কলেজ ক্যাম্পাসের মধ্যে থেকে ধরে আনা, হত্যা পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বন্ড-০০৭–এর সদস্যদের ঘটনাস্থলে জড়ো করা, কোপানোর জন্য লুকিয়ে রাখা রামদা আনা এবং প্রথম কোপটি দেন এই রিফাত ফরাজী।
রিফাত শরীফকে হত্যার ঘটনায় তার বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে বরগুনা সদর থানায় ১২ জনকে আসামি করে এবং ৪-৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করেন।
এ মামলায় এখন পর্যন্ত ১১ জন গ্রেপ্তার হয়েছেন, ৬ জন এরই মধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এর মধ্যে গতকাল শনিবার জবানবন্দি দিয়েছেন সাগর ও নাজমুল ইসলাম।
এর আগে চন্দন, মো. হাসান, অলিউল্লাহ ও তানভীর হাসান জবানবন্দি দিয়েছেন। এই চারজনের মধ্যে প্রথম তিনজন এজাহারভুক্ত আসামি। এ ছাড়া মামলার আসামি নয়ন বন্ড গ্রেপ্তারের পর পুলিশের সঙ্গে ক্রসফায়ারে নিহত হন।
এছাড়া মামলার ৩ নম্বর আসামী রিশান ফরাজী, ৫ নম্বর মুছা বন্ড, ৬ নম্বর রাব্বি আকন, ৭ নম্বর মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, ৮ নম্বর আসামী রায়হান এখনো পলাতক।

আরো পড়ুন :   মিথ্যা বলছেন মিন্নি, নয়নের সঙ্গেও বিয়ে হয়েছিল তার

ভিডিও দেখুন এখানে-https://youtu.be/BZ4zL2TvIdU