নতুন অভিজ্ঞতার সামনে টাইগাররা

গোলাপী বলে সুইং বেশি হয়। আগে থেকে খেলার অভিজ্ঞতা থাকলে ভালো হতো। তারপরও প্রথমবার গোলাপী বলে খেলতে রোমাঞ্চিত টাইগাররা। জানিয়েছেন ইমরুল কায়েস।

বাংলাদেশ ও ভারত দুই দলের জন্যই প্রথম অভিজ্ঞতা বলে খুব একটা ভাবছেন না ইমরুল। টি-টোয়েন্টিতে টাইগারদের দারুণ শুরু সাদা পোষাকে আত্মবিশ্বাস বাড়াবে বলে মনে করেন তিনি। কলকাতার দিবা-রাত্রির টেস্ট সামনে রেখে মিরপুরে গোলাপী বলে অনুশীলন করেছেন ইমরুল-মিরাজরা।

ইডেনে ইতিহাস রচিত হবে। নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবার দিবারাত্রীর ম্যাচে লড়বে বাংলাদেশ-ভারত। গোলাপী বল রং ছড়াবে। কিন্তু অভিজ্ঞতা নেই ইমরুল মিরাজদের। হুট করেই ভারতীয় বোর্ডের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়েছে বিসিবি। কিছুটা তাই ভাবনায় পড়েছে টাইগাররা। মিরপুরে জাতীয় লিগের ম্যাচ শেষে ইমরুল মিরাজ নেমে পড়েন গোলাপী বলের অনুশীলনে।

আরো পড়ুন :   বিশ্বনাথে মাছের খামারে আ.লীগ নেতার লাশ, পালিয়েছে প্রহরী

বলের আকারতো একই। রংটাই শুধু আলাদা। তবুও আছে নাকি কিছু পার্থক্য। ইমরুলের কাছে তাই জানতে চাওয়া। এই বলের কি চরিত্র?

ইমরুল কায়েস বলেন, পিংক বলে সুইংটা বেশি করে, রেড বল থেকে। যেহেতু আমি ফার্স্টটাইম প্র্যাকটিস করেছি। আরো কয়েকদিন প্র্যাকটিস করলে জানতে পারবো, এক্সাটলি কী হয়।

তবু আগে থেকে খেললে হয়ত আরো ভালো বোঝা যেতো। ভালো রপ্ত হতো। তবে টাইগারদের মতো ভারতীয়দের কাছেও প্রথম। তাই কিনা অতটা চিন্তার কারণ দেখছেন না ইমরুল।

ইমরুল আরো জানান, আগে থেকে খেললে ভালো হতো। যেহেতু আমরা অভ্যস্ত নই। আর ওরাও কখনো খেলে নাই। এইটা দুইট টিমের জন্য অভিজ্ঞতা হবে।

প্রথম টি টোয়েন্টিতে ভারতকে হারিয়ে উজ্জীবিত বাংলাদেশ। দেশে বসেও আত্মবিশ্বাস বেড়েছে টেস্ট দলের সদস্যদের। সাদা পোষাকেও এ সাফল্য টেনে নেয়ার আশা তাদের।

আরো পড়ুন :   খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ, বললেন মির্জা ফখরুল

সময় টিভি