জঙ্গির মধ্য একজন চাকরিজীবী,অন্যজন ভ্যানচালক

ঢাকার মোহাম্মদপুরের বসিলা এলাকার জঙ্গি আস্তানায় যে দুজন নিহত হয়েছেন, তাদের একজন নিজেকে ভ্যানচালক ও অন্যজন বেসরকারি চাকরিজীবী হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন।

আর তাদের নাম বলেছিলেন সুজন ও সুমন। বাড়ির কেয়ারটেকার সোহাগ র্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ তথ্য জানিয়েছেন।

র্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি, অপারেশন) কর্নেল মো. জাহাঙ্গীর আলম গণমাধ্যমকে এ কথা জানান। কেয়ারটেকারের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ‘দেড়মাস আগে ১৫শ’ টাকায় বাসাটি ভাড়া নেয় তারা। প্রথমে ব্যাচেলর ভাড়া দেওয়া হবে না জেনে পরে নিজেদের বিবাহিত পরিচয় দেয় দু’জন। তখন তারা জানায়, দু’জনের স্ত্রীই দু-একদিনের মধ্যে আসবে ‘ জাহাঙ্গীর জানান, দেড়মাস আগে বাসা ভাড়া নিলেও দু’জন কখনোই একটানা থাকেনি।

আরো পড়ুন :   সিলেটে অবৈধ গাড়ি স্ট্যান্ড উচ্ছেদে নেমেছেন মেয়র আরিফ

তাদের স্ত্রীকেও আনেনি যেহেতু, সেহেতু কেয়ারটেকারও এ বিষয়ে কিছু বলেনি। তারা মাঝেমধ্যে আসতো এবং দুই-একদিন করে থেকেছে। প্রথমবারের মতো গত ৩-৪ দিন ধরে একটানা দু’জন একসঙ্গে থাকছিলো।

বাসা ভাড়া নেওয়ার সময় নিয়ম অনুযায়ী ভাড়াটিয়া হিসেবে কোনো তথ্যই ওই দু’জন দেয়নি বলে জানান কর্নেল জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, তাদের আসল পরিচয় এবং পেশা আমরা জানার চেষ্টা করছি।

সোমবার ভোর রাত সাড়ে ৩টার দিকে বসিলার মেট্রো হাউজিংয়ের টিনশেড ওই বাড়িটি জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘেরাও করে র্যাব। পরে আশেপাশের বাসিন্দাদের নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নেওয়া হয়