ক্রিশ্চিয়ানা রোনালদোর চেয়ে ১০০ ম্যাচ কম খেলে ৬০০ গোল মেসির

বিশ্বের সপ্তম ফুটবলার হিসেবে নিজের ক্লাব ক্যারিয়ারে ৬০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করলেন লিওনেল মেসি। চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে, লিভারপুলের বিপক্ষে ফ্রি কিক থেকে করা বার্সা সুপার স্টারের চোখ জুড়ানো গোলটি ফুটবল ভক্তদের হৃদয়ে গেঁথে থাকবে বহুদিন। যদিও কদিন আগেই ক্লাব ক্যারিয়ারে ৬০০ গোল পূরণ করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবে পরিসংখ্যানে, সি আর সেভেনের চেয়ে প্রায় ১০০ ম্যাচ কম খেলেছেন ফুটবলের ক্ষুদে যাদুকর মেসি।

২০০৪ সালে বার্সেলোনার সিনিয়র দলের হয়ে যাত্রা শুরু লিওনেল আন্দ্রেস মেসি। প্রতিশ্রুতিশীল তবে, তখনও তার পায়ের যাদু সম্পর্কে খুব একটা ধারণা ছিলনা ফুটবল দুনিয়ার। পরের বছর পহেলা মে কাতালানদের হয়ে প্রথম গোলটি করেছিলেন। ২০১৯ সালে এসে ক্লাব ক্যারিয়ারে ৬০০তম গোলের দেখা পেলেন মেসি।

আরো পড়ুন :   ভায়েকানোর কাছে হেরে গেল রিয়াল মাদ্রিদ!


এ মৌসুমের শুরুতেই বলেছিলেন ২০১৫ সালের পর আবারো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপার জন্য নাকি মুখিয়ে আছেন তিনি। স্বপ্নযাত্রাকে শিরোপার কাছে নিয়ে যেতেই লড়ছেন লিও। মাত্রই লা লিগায় লেভান্তের বিপক্ষে শিরোপা জয়ের ম্যাচেও তার অবদান। ১১ বছরে এটি বার্সার অষ্টম লা লিগার ট্রফি। ন্যু ক্যাম্পে লিগ জয়ের উৎসবের রাতে মেসির গোল সংখ্যা ছিলো ৫৯৮। তখনো কি সমর্থকরা ভাবতে পেরেছিলো এত দ্রুত ৬০০ গোলের মাইলফলকও ছুঁয়ে ফলৈবেন মেসি।


হ্যাঁ মানুষটা মেসি বলেই সব সম্ভব। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এখন পর্যন্ত একমাত্র অপরাজিত দল বার্সেলোনা। বাঘা সব প্রতিপক্ষও এখন তাদের দিতে পারেনি হারের তিক্ততা। তবে, সেমির মঞ্চে প্রতিপক্ষ নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে অন্যতম সেরা সময় পার করা লিভারপুল বলেই হয়ত কিছুটা শঙ্কা ছিলো।

আরো পড়ুন :   দ্যা ভাজিনা স্টেডিয়াম


কিন্তু ৬০০ গোলের মাইলফলকের রাতে সব বাঁধা দুমরে মুচরে ইতিহাসের পাতায় নিজেকে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেলেন মেসি। সেমিফাইনালে তার শ্রেষ্ঠত্বের রাতে চেয়ে দেখা ছাড়া কিছুই করার ছিলনা ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকারের। ৬০০ গোলের মধ্যে ৪১৭টি গোল মেসি করেছেন লা লিগায়। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ১১২টি। কোপা দেল রেতে ৫০টি। স্প্যানিশ সুপার কাপে ১৩ টি গোল। উয়েফা সুপার কাপে তিনটি এবং ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপে ৫টি।