আফিফ হোসেন যে কারনে ক্যারিবিয়ান লীগ খেলার অনুমতি পাননি

আসন্ন ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) দল পেয়েছেন বাংলাদেশের তরুণ অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ধ্রুব। ড্রাফট তালিকা থেকে তাকে দলে ভিড়িয়েছে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস। তবে শেষ পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক লিগটিতে খেলতে যাওয়া হচ্ছে না তার। তাকে অনাপত্তিপত্র (এনওসি) দেয়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।
নেপথ্যে রয়েছে জোরালো যুক্তি। উঠতি তরুণদের মধ্যে আফিফের ওপর বিশেষ নজর রাখছেন নির্বাচকরা। তাকে নিয়ে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। তাই ইমার্জিং দলে রেখে ওকে নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছেন তারা।
গতকাল সোমবার আফিফের যাওয়া প্রসঙ্গে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি বোর্ডের অন্যতম নির্বাচক হাবিবুল বাশার সুমন। তবে আভাস দিয়ে রেখেছেন তিনি। সাবেক টাইগার অধিনায়ক বলেন, তাকে নিয়ে আমাদের পরিকল্পনা আছে। সে সম্ভাবনাময়ী ক্রিকেটার। ‘এ’ দল, এইচপি দল- সবখানেই তাকে দেখছি আমরা। ওকে ভবিষ্যতের জন্য তৈরি করছি। এখন এইচপি টুর্নামেন্ট চলছে। তাতে খেলছে সে। পরে আমাদের আফগানিস্তান সিরিজ আছে। যদিও এ জন্য দল চূড়ান্ত করিনি আমরা। তবে আমাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় আছে ও।

আরো পড়ুন :   বড় দলকে হারিয়ে সেমিতে যাবে বাংলাদেশ আশা হাবিবুলের

এখন বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের হয়ে শ্রীলংকার বিপক্ষে খেলছেন আফিফ। লংকানদের বিপক্ষে সবশেষ ওয়ানডেতে করেন অপরাজিত ৬৮ রান। মঙ্গলবার থেকে তাদের বিপক্ষেই শুরু হয়েছে চার দিনের ম্যাচ। আছেন জাতীয় দলের আসন্ন সিরিজের প্রাথমিক দলেও। সব মিলিয়ে বেশ ব্যস্ত সময়ই পার করছেন তিনি। মূলত এসব কারণেই সিপিএলে খেলতে যাওয়ার অনুমতি পাচ্ছেন না আফিফ।
২০১৯ সালে সিপিএল শুরু হবে ৪ সেপ্টেম্বর এবং শেষ হবে ১২ অক্টোবর। ড্রাফট থেকে ৫ জন বিদেশি খেলোয়াড় ভেড়াতে পারত প্রতিটি দল। নিয়মানুযায়ী আফিফকে টানে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস।